বাংলাদেশের কৃষক - রচনা [ class 3, 4, 5 ]

সূচনা: 

শিল্পে, কিছু উন্নতি হলেও বাংলাদেশ এখনও মূলত কৃষিপ্রধান দেশ । এদেশের জাতীয় অর্থনীতি অনেকাংশে কৃষির ওপর নির্ভরশীল । তাই কৃষককে এদেশের অর্থনীতির মেরুদণ্ড বলা হয় ।

কৃষকের অতীত ও বর্তমান অবস্থা: 

কৃষকরা প্রাচীনকাল থেকেই বাংলার অর্থনীতিতে অবদান রেখে আসছেন। অতীতে অবস্থাপন্ন কৃষকদের ছিল গোলা ভরা ধান আর গোয়াল ভরা গরু। তবে সাধারণ কৃষকদের বেশিরভাগই সাদামাটা জীবনযাপন করতেন। 

বর্তমানে দেশের অনেক উন্নয়ন হলেও কৃষকদের ভাগ্যের ততটা উন্নতি হয়নি । বহু কৃষক অন্যের জমি ভাগে চাষ করেন। বেশিরভাগ সময় তারা পণ্যের ন্যায্য দাম পান না। এ কারণে বেশিরভাগ কৃষকের জীবনযাত্রার মান খুব ভালো নয় ।

আরও পড়ুন :- ধান - বাংলা রচনা [ class 3, 4, 5 ]

কৃষকের দুরবস্থার কারণ: 

আমাদের দেশের বেশিরভাগ কৃষক অশিক্ষিত। আধুনিক চাষপদ্ধতি সম্পর্কে তারা তেমন কিছু জানেন না। পুঁজি কম বলে তারা উন্নত যন্ত্রপাতি বা উপকরণও কিনতে পারেন না। অনেক কৃষক প্রয়োজনমতো ঋণ পান না। এসব কারণে ফলন কম হয়। বিপুলসংখ্যক কৃষকের নিজের জমি নেই। তাছাড়া ফড়িয়াদের খপ্পরে পড়ে তারা ফসলের দাম কম পান ।

কৃষকের দুর্দশা দূর করার উপায়: 

কৃষকদের দুরবস্থা লাঘব করতে হলে কৃষিব্যবস্থার সার্বিক উন্নয়ন প্রয়োজন। কৃষকদের আধুনিক পদ্ধতিতে চাষাবাদ করার প্রশিক্ষণ দিতে হবে। সরকারি ব্যবস্থাপনায় প্রকৃত কৃষকদের কাছে ভালো বীজ, সার, কীটনাশক, যন্ত্রপাতি ইত্যাদি পৌছে দিতে হবে। ভূমিহীন কৃষকদের জমি দিতে হবে। কৃষকদের সুদবিহীন বা নামমাত্র সুদে ঋণের ব্যবস্থা করতে হবে। পণ্যের ন্যায্য দাম পাওয়াও নিশ্চিত করতে হবে। 

উপসংহার: 

কৃষকরা আমাদের দেশের প্রাণ। কবি বলেছেন, 'সব সাধকের বড় সাধক আমার দেশের চাষা'। তাই দেশের সার্বিক আর্থসামাজিক উন্নয়নের জন্য কৃষকের উন্নতি অতি জরুরি।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

শিক্ষাগার ওয়েবসাইটের নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url