দ্বন্দ্ব সমাস কাকে বলে এবং দ্বন্দ্ব সমাসের শ্রেণীবিভাগ ব্যাখ্যা

সংজ্ঞা :- যে সমাসে সমান বিভক্তি বিশিষ্ট দুই বা ততোধিক পদ মিলিত হয়ে এক পদে পরিণত হয় এবং প্রত্যেকটি পদের অর্থ প্রাধান্য পায় তাকে দ্বন্দ্ব সমাস বলে। 

দ্বন্দ্ব সমাসের শ্রেণীবিভাগ :

দ্বন্দ্ব সমাসকে কয়েকটি ভাগে ভাগ করা যায় । যথা-

১. সমার্থক দ্বন্দ্ব :

যে দ্বন্দ্ব সমাসে ভিন্নার্থক শব্দের সংযোগ না বুঝিয়ে অনুরূপ অর্থবোধক শব্দের সংযোগ বুঝায়, তাকে সমার্থক দ্বন্দ্ব সমাস বলে । অর্থাৎ যে সমাসে পূর্বপদ ও উত্তরপদ সমান অর্থ প্রকাশ করে, তাকে সমার্থক দ্বন্দ্ব সমাস বলে। যে.মন- হাট ও বাজার = হাটবাজার, খাতা ও পত্র = খাতাপত্র ইত্যাদি।

২. সহচর দ্বন্দ্ব : 

এ জাতীয় সমাসের পূর্বপদ ও পরপদ প্রায় সমার্থক হয়। যেমন- কাপড় ও চোপড় = কাপড়-চোপড়, পোকা ও মাকড় = পোকা-মাকড় ইত্যাদি ।

৩. মিলনার্থক দ্বন্দ্ব : 

মা ও বাপ = মা-বাপ, জিন ও পরী = জিন-পরী ইত্যাদি ।

৪. বিরোধার্থক দ্বন্দ্ব :

বিরোধার্থক দ্বন্দ্ব সমাসকে দু'ভাগে ভাগ করা যায় । যথা-

ক. বিরোধার্থক শব্দ যোগে : যে দ্বন্দ্ব সমাসে সমস্যমান শব্দ বা পদ দুটি পরস্পর বিরোধী বিষয় বুঝায়, তাকে বিরোধার্থক দ্বন্দ্ব সমাস বলে । যেমন- স্বর্গ ও নরক = স্বর্গ-নরক, পাপ ও পুণ্য = পাপ-পুণ্য ইত্যাদি।

খ. বিপরীত শব্দ যোগে : আয় ও ব্যয় = আয়-ব্যয়, জমা ও খরচ = জমা-খরচ ইত্যাদি।

৫. অঙ্গবাচক দ্বন্দ্ব : 

হাত ও পা = হাত-পা, হাড় ও মাংস = হাড়-মাংস, মাথা ও মুণ্ডু = মাথা-মুণ্ডু, ইত্যাদি।

৬. সংখ্যাবাচক দ্বন্দ্ব : 

সাত ও পাঁচ = সাত-পাঁচ, নয় ও ছয় = নয়-ছয়, উনিশ ও বিশ = উনিশ-বিশ ইত্যাদি

৭. সর্বনাম যোগে দ্বন্দ্ব : 

যা ও তা = যা-তা, যে ও সে = যে-সে, তুমি ও আমি = তুমি-আমি ইত্যাদি ৷

৮. ক্রিয়াবাচক দ্বন্দ্ব : 

যাওয়া ও আসা = যাওয়া-আসা, চলা ও ফেরা = চলা-ফেরা ইত্যাদি।

৯. দুটি ক্রিয়া বিশেষণ যোগে দ্বন্দ্ব : 

ধীরে ও সুস্থে = ধীরে-সুস্থে, আগে ও পিছে = আগে-পিছে ইত্যাদি।

১০. বিশেষণ বাচক দ্বন্দ্ব : 

ভালো ও মন্দ = ভালো-মন্দ, আসল ও নকল = আসল-নকল ইত্যাদি ।

১১. বহুপদী দ্বন্দ্ব : 

তিন বা ততোধিক পদে দ্বন্দ্ব সমাস সাধিত হলে তাকে বহুপদী দ্বন্দ্ব সমাস বলে। যেমন- আগা, পাছা এবং তলা 

= আগা পাছা তলা; সাহেব, বিবি এবং গোলাম = সাহেব বিবি গোলাম; রূপ, রস, শব্দ, গন্ধ ও স্পর্শ = রূপ-রস-শব্দ-গন্ধ- স্পর্শ ইত্যাদি।

১২. অলুক দ্বন্দ্ব : 

যে সমাসে পূর্বপদ ও উত্তর পদের বিভক্তি চিহ্ন লোপ পায় না, তাকে অলুক দ্বন্দ্ব সমাস বলে। যেমন- ঘরে ও বাইরে = ঘরে বাইরে, হাতে ও কলমে = হাতে-কলমে, মায়ে ও ঝিয়ে = মায়ে-ঝিয়ে, কোলে ও পিঠে = কোলে-পিঠে, ইত্যাদি

১৩. একশেষ দ্বন্দ্ব : 

যে দ্বন্দ্ব সমাসে প্রধান পদটি অবশিষ্ট থেকে অন্য পদের লোপ হয় এবং শেষ পদ অনুসারে যখন শব্দের রূপ নির্ধারিত হয়, তখন তাকে একশের দ্বন্দ্ব সমাস বলে। যেমন- সে, তুমি ও আমি = আমরা ইত্যাদি ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

শিক্ষাগার ওয়েবসাইটের নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url