বাংলাদেশের জাতীয় মাছ - ইলিশ রচনা : Class 3, 4, 5

ভূমিকা: 

বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ। এদেশের নদীগুলোতে প্রচুর পরিমাণে মাছ পাওয়া যায়। সকল প্রকার মাছের মধ্যে আলাদা বৈশিষ্ট্যের কারণে ইলিশ আমাদের জাতীয় মাছ। ইলিশকে এ দেশে 'মাছের রাজা' বলা হয় ।

আবাসস্থল: 

ইলিশ মাছ সাধারণত সমুদ্রের লোনা পানিতে বাস করে। তবে ডিম পাড়ার সময় এরা নদীতে আসে। আর এ কারণে পদ্মা, মেঘনা, যমুনাসহ বড় নদীগুলোতে ইলিশ পাওয়া যায়। নদীর  মোহনায় সবচেয়ে বেশি ইলিশ ধরা পড়ে। চাঁদপুর জেলা ইলিশের জন্য বিখ্যাত ।

খাদ্য হিসেবে ইলিশ: 

ইলিশ খুবই সুস্বাদু একটি মাছ। রান্না করার সময় এর সুবাস চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ে। সাধারণত রান্না ও ভাজা ছাড়াও ইলিশ দিয়ে সরষে ইলিশ, ইলিশ পাতুরি, ভাপা ইলিশ, ইলিশ-পোলাওসহ নানা রকম সুস্বাদু পদ তৈরি হয়। মাছের মধ্যে ইলিশ বাঙালির পছন্দের শীর্ষে। এর পুষ্টিগুণও অনেক ।

আরও পড়ুন :- বাংলাদেশের জাতীয় পাখি - দোয়েল রচনা : Class 3, 4, 5

অর্থনৈতিক গুরুত্ব: 

ইলিশ ধরা ও বেচাকেনায় অনেক লোকের কর্মসংস্থান হয়। এ কারণে জাতীয় অর্থনীতিতে এর বিশাল গুরুত্ব রয়েছে। মৌসুমে এ মাছটি প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায়। সীমিত পরিসরে ইলিশ রপ্তানির মাধ্যমে আমরা অনেক বৈদেশিক মুদ্রাও অর্জন করি। 

ইলিশের এ গুরুত্ব বিবেচনা করে সরকার ডিম পাড়ার মৌসুমে মাছটি ধরা নিষিদ্ধ করেছে। এ সময় জেলেদের সহায়তা দেওয়ার ব্যবস্থা করেছে সরকার। এ ছাড়া বাচ্চা ইলিশ বা জাটকা মাছ ধরাও আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ ।

উপসংহার: 

ইলিশ আমাদের এক বড় সম্পদ। আমাদের সবার উচিত নিয়ম মানার মাধ্যমে এ সম্পদ রক্ষা করা। নিষিদ্ধ সময়ে ইলিশ মাছ ধরা ও খাওয়া থেকে বিরত থাকলে ইলিশের ভান্ডার আরও বৃদ্ধি পাবে। এ জন্য সরকারের পাশাপাশি নাগরিকদেরও সচেতন হতে হবে।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

শিক্ষাগার ওয়েবসাইটের নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url