বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য - রচনা : Class 3, 4, 5

ভূমিকা: 

সুজলা-সুফলা, শস্য-শ্যামলা সোনার দেশ হলো আমাদের এই বাংলাদেশ। প্রকৃতি উদার হাতে অপরূপ সৌন্দর্য আর মাধুর্য দিয়ে সাজিয়েছে এদেশকে।

বাংলাদেশের রূপবৈচিত্র্য: 

বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলে রয়েছে বিশ্বখ্যাত সুন্দরবন। সুন্দরী গাছ আর রয়েল বেঙ্গল টাইগারের জন্য সুন্দরবন বিখ্যাত। এটি বিশ্বের সর্ববৃহৎ ম্যানগ্রোভ বন ।

দক্ষিণ-পূর্বের কক্সবাজার সমুদ্র উপকূল বিশ্বের দীর্ঘতম প্রাকৃতিক সৈকত। কক্সবাজারে সাগর আর পাহাড়ের মিতালি মুগ্ধ করে দেশবিদেশের পর্যটকদের।

পার্বত্য চট্টগ্রাম এবং সিলেটে রয়েছে সবুজে মোড়া পাহাড়, ঝরনা, ঢেউ খেলানো চা বাগান আর গহীন বনের সৌন্দর্য ।

পদ্মা, মেঘনা, যমুনা ইত্যাদি বড় বড় নদী এদেশের সৌন্দর্যকে অনন্য করে তুলেছে । বড় বড় বিল, হাওড়গুলোর রূপও নয়নাভিরাম ।

আরও পড়ুন :- আমাদের এই দেশ রচনা : Class 5

গ্রামবাংলা: 

বাংলাদেশ গ্রামপ্রধান দেশ। দেশের বড় অংশ জুড়েই রয়েছে গ্রামের নিটোল সৌন্দর্য। শহরের গণ্ডি পেরুলেই যতদূর দৃষ্টি যায় সবুজ মাঠ। গাছপালায় ঘেরা ছোট ছোট বাড়িগুলো ছায়াময়, শান্ত ।

ঋতুবৈচিত্র্য: 

বাংলাদেশ ষড়ঋতুর দেশ। গ্রীষ্মের প্রকৃতির রয়েছে এক ধরনের রুক্ষ সৌন্দর্য। গরমের দাবদাহের পর বর্ষার অঝোর বৃষ্টিতে 

প্রকৃতি সজীব হয়ে ওঠে। শিউলি ও কাশফুলের শুভ্র হাসি নিয়ে আসে শরৎ। এরপর হেমন্তে মাঠে মাঠে থাকে পাকা ধানের সোনালি আভা হেমন্তের পরে শীত আসে হিমেল হাওয়া নিয়ে। কুয়াশার চাদরে ঢাকা পড়ে রাত আর ভোরের প্রকৃতি। বসন্তে প্রকৃতিতে আবার জাগে চাঞ্চল্য। গাছে গাছে সবুজ কচি পাতা আর ফুলের শোভা। এভাবে ভিন্ন ভিন্ন ঋতুতে পৃথক রূপে সাজে বাংলার প্রকৃতি ।

উপসংহার: 

বাংলাদেশের প্রকৃতির রূপের শেষ নেই। বিচিত্র তার সৌন্দর্য। এ অপরূপ সৌন্দর্য এদেশের মানুষের মনকে করেছে সৌন্দর্যের পূজারি, ভাবুক আর দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

শিক্ষাগার ওয়েবসাইটের নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url