কুরআন ও সুন্নাহর আলোকে - রমজানের ফজিলত সমূহ

ইসলামের অন্যতম তৃতীয় স্তম্ভ হচ্ছে রোজা। আর এ রোজা পালিত হয় রমজান মাসে। রমজানের অসংখ্য ফজিলত রয়েছে। নিম্নে কুরআন ও সুন্নাহর আলোকে রমজানের উল্লেখযোগ্য কতিপয় ফজিলতের বর্ণনা তুলে ধরা হলো। যেমন- 

১. রমযানের আগমনে আল্লাহর রহমতের দরজাসমূহ খুলে দেয়া হয়।

যেমন হাদীসে এসেছে- إِذَا جَاءَ رَمَضَانُ فُتِحَتْ أَبْوَابُ الرحمةِ

২. রমযানের আগমনে আকাশের দরজাসমূহ খুলে দেয়া হয়। যেমন 

হাদীসে এসেছে- إِذَا جَاءَ رَمَضَانُ فُتِحَتْ أَبْوَابُ السَّمَاء

৩. রমযানের আগমনে জান্নাতের দ্বারসমূহ খুলে দেয়া হয়। যেমন 

হাদীসে এসেছে- إِذَا جَاءَ رَمَضَانُ فُتِحَتْ أَبْوَابُ الْجَنَّةِ .

৪. রমযানের আগমনে জাহান্নামের দরজাসমূহ বন্ধ করে দেয়া হয়। 

যেমন হাদীসে এসেছে- إذَا جَاءَ رَمَضَانُ غَلِقَتْ أَبْوَابُ جَهَنَّمَ 

৫. রমযানের রোযা পালনের মাধ্যমে অতীতের গুনাহসমূহের ক্ষমা পাওয়া যায়। 

যেমন হযরত আবু হোরায়রা (রা) থেকে বর্ণিত হাদীসে এসেছে- مَنْ صَامَ رَمَضَانَ إِيْمَانًا وَاحْتِسَابًا غُفِرَ لَهُ مَا تَقَدَّمَ مِنْ ذَنْبِه .

৬. রমযানের রোযা পালনের মাধ্যমে ক্ষুধার তীব্র পীড়নে জর্জরিত গরিবদের প্রতি ধনীদের অন্তরে বেদনার অনুভূতি জাগ্রত হয় ।

৭. রমযান হলো কুরআন নাযিলের মাস। কুরআনের আলোকে সমাজ বিনির্মাণের প্রেরণা যোগায় পবিত্র মাহে রমযান । 

আল্লাহ তায়ালা বলেন- شَهْرُ رَمَضَانَ الَّذِى أُنْزِلَ فِيهِ الْقُرْآنُ هُدًى لِلنَّاسِ وَبَيِّنَات مِنَ الْهُدَى وَالْفُرْقَان .

৮. রমযান স্রষ্টার সান্নিধ্যলাভের অন্যতম মাধ্যম।

৯. রমযান ব্যক্তিকে পাপাচার ও অবাঞ্চিত কাজ হতে বিরত রাখে।

১০. রমযান রোযাদারকে স্রষ্টার প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপনে অনুপ্রাণিত করে।

১১. রমযান মাস মানসিক প্রশান্তিলাভের অন্যতম একটি মাস।

১২. রমযান রোযাদারকে যাবতীয় কুটিলতা, মলিনতা ও গুনাহ থেকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করে স্বচ্ছ ও শুদ্ধ মানুষ হিসেবে গড়ে তোলে ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

শিক্ষাগার ওয়েবসাইটের নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url