কাঁটা হেরি ক্ষান্ত কেন কমল তুলিতে : ভাব সম্প্রসারণ (৩টি )

প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুগণ, তোমাদের শেখার সুবিধার্থে "কাঁটা হেরি ক্ষান্ত কেন কমল তুলিতে দুঃখ বিনা সুখ লাভ হয় কি মহীতে" ভাবসম্প্রসারণটি ৩টি বই থেকে সংগ্রহ করে দেওয়া হলো। তোমাদের কাছে যেটা সবচেয়ে সহজ মনে হয় সেটাই শিখে নিতে পারো। 

কাঁটা হেরি ক্ষান্ত কেন কমল তুলিতে ভাব সম্প্রসারণ - ১ 

মূলভাব : প্রতিটি সুখ বা সাফল্যের পেছনে রয়েছে দুঃখ, কষ্ট ও কঠোর সাধনা।

সম্প্রসারিত ভাব : মহৎ সাফল্য সাধনা সাপেক্ষ। সুখ এবং দুঃখ মানবজীবনের সঙ্গে অচ্ছেদ্য বন্ধনে জড়িত; কিন্তু মানুষ অনন্ত সৌন্দর্য পিয়াসী। মানুষ সুখ চায়, চায় স্বার্থকতা। কিন্তু এই সুখ, এই আনন্দ বিনা পরিশ্রমে লাভ করা যায় না। 

সুখ লাভ করতে হলে কত সাধনা, শ্রম এবং অধ্যবসায়ের দরকার। বস্তুত, পদ্মফুলের সৌরভ নিতে চাইলে কাঁটার আঘাত সহ্য করতে হয়। তেমনি পৃথিবীতে সুখ স্বাচ্ছন্দ্যের সাথে বসবাস করতে চাইলে দুঃখের জ্বালা সইতে হবে। সুখের মতই দুঃখকে বরণ করে নিতে হবে। তবেই আসবে সফলতা এবং স্বার্থকতা ।

মন্তব্য : মহৎ সাফল্য সাধনা সাপেক্ষ। জীবনে সফলতা লাভ করতে হলে আমাদের জীবন পথের সকল বাধা বিপত্তি ও দুঃখ-দুর্দশা বরণ করে সম্মুখে অগ্রসর হতে হবে।

আরও  পড়ুন :-  পুষ্প আপনার জন্য ফোটে না ভাব সম্প্রসারণ - ৩টি 

কাঁটা হেরি ক্ষান্ত কেন কমল তুলিতে ভাব সম্প্রসারণ - ২ 

মূলভাব : দুঃখকষ্টের ভয়ে কাজ হতে বিরত থাকা উচিত নয়। কেননা জীবনে সফলতা অর্জন করতে হলে তাকে অবশ্যই দুঃখকষ্টের ভিতর দিয়ে অগ্রসর হতে হবে।

সম্প্রসারিত ভাব : প্রস্ফুটিত পদ্মের রূপ-সৌন্দর্য সকলকে আকৃষ্ট করে। কিন্তু পদ্ম ফুলের বোটায় প্রচুর কাঁটা থাকে। কাঁটার ভয়ে কেউ যদি পিছিয়ে যায় তবে তাঁর ভাগ্যে পদ্ম জুটবে না। কোনো জিনিস পাওয়ার পেছনে তার কিছু না কিছু কষ্ট সহ্য করতে হয়। কাজেই কাঁটার আঘাতকে সানন্দে বরণ করে নিলেই কেবল সে পদ্ম ফুলের অধিকারী হতে পারবে।

মানুষের জীবনও তেমনি সুখ-দুঃখে ঘেরা। সুখকে পেতে হলে তাকে অবশ্যই দুঃখকে সানন্দে গ্রহণ করতে হবে। অর্থাৎ ব্যক্তিজীবনের সুখও পদ্মফুলের মতো। তাকে দুঃখ রূপ কাঁটার আঘাত সহ্য করেই সফলতার পথে পাড়ি জমাতে হবে। সংসারের কাঁটাস্বরূপ দুঃখকষ্ট, বৈরী প্রতিকূলতা, বাধা-বিপত্তি পার হয়ে সুখস্বরূপ পদ্ম ছিনিয়ে আনা সম্ভব। যে যতবেশি সাধনা করবে, সে ততবেশি সুখি হতে পারবে। কাজেই মানুষকে দুঃখ জয়ের ব্রত অবলম্বন করেই সুখ অর্জন করতে হবে।

মন্তব্য : জীবনের কোনো মহৎ কর্মই ত্যাগ তিতিক্ষা, দুঃখ কষ্ট ছাড়া সফল হয় না। কাজেই জীবনের সাফল্য ও শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করতে হলে দুঃখকে বরণ করে নিতে হবে।

আরও  পড়ুন :- যে জন দিবসে মনের হরষে জ্বালায় মোমের বাতি ভাবসম্প্রসারণ-৩টি 

কাঁটা হেরি ক্ষান্ত কেন কমল তুলিতে ভাব সম্প্রসারণ - ৩

মূলভাব : মানব জীবন ফুলসয্যা নয়, দুঃখের সাগর পেরিয়ে তাকে সুখের পারে ওঠতে হয় ।

সম্প্রসারিত ভাব : পদ্মফুল সুন্দর, পদ্মফুলের মনমাতানো সৌন্দর্যে আকৃষ্ট হয়ে মানুষ তাকে পাবার জন্য ব্যাকুল হয়ে ওঠে। কিন্তু পদ্মফুল পেতে হলে পানি, কাঁদা অতিক্রম করে তার কাছে যেতে হয় তারপর পদ্মফুল তুলতে কাঁটার আঘাত সহ্য করতে হয় । এ সব কষ্ট স্বীকার করলে তবে-পদ্মফুল হস্তগত করা যায়। যদি কেউ পানি, কাঁদা ও কাঁটার আঘাত সহ্য করতে অস্বীকার করে তবে সে সুন্দর পদ্মফুল হতে বঞ্চিত হবে। 

তার ভাগ্যে পদ্মফুল ফোটবে না, আনন্দও পাবে না। মানব জীবনের সুখের পথটিও এমন বিপদসংকুল । বিপদ দুঃখ কষ্টের বন্দর পার হতে পারলে জীবনে তরী সুখের বন্দরে ভিড়বে। সুখের বন্দরে জীবন তরী ভিড়াতে অনেক সংগ্রাম কষ্ট স্বীকার করতে হবে। এ সব বিপদ দেখে পিছপা হলে সুখের বন্দরে পৌঁছা সম্ভব হবে না। যিনি কঠোর সাধনা ও দুঃক-কষ্ট ভোগ করতে পারে তাঁর জীবনে সুখ অনিবার্য । 

মন্তব্য : সাধনা করলে সাফল্য আসবেই । জীবনকে সুখী করতে হলে দুঃখ-কষ্ট স্বীকার করতে হবে । দুঃখ-দুর্দশা বরণ করে যে পথ চলে সুখ তাকেই ধরা দেয় ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

শিক্ষাগার ওয়েবসাইটের নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url