শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড ভাবসম্প্রসারণ - ৩টি

শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড ভাবসম্প্রসারণ - ১

মূলভাব : শিক্ষা হল একটি জাতির উন্নতির মূল সূত্র।

সম্প্রসারিত ভাব : মেরুদণ্ড মানবদেহের অপরিহার্য অঙ্গ। কোন মানুষের মেরুদণ্ড না থাকলে সে মানুষ দাঁড়াতে, বসতে বা চলতে পারে না। শিক্ষাবিহীন জাতির অবস্থাও তদ্রুপ। শিক্ষার মাধ্যমে সমাজ তাদের সমগ্র উন্নতি এবং সমৃদ্ধি সাধন করছে। যাবতীয় সভ্যতার মূলে এই শিক্ষাই নিহীত রয়েছে। 

কোন জাতিই শিক্ষা ছাড়া তাদের ভাগ্য উন্নয়ন করতে পারেনি। শিক্ষার এমন শক্তিধর ক্ষমতা পর্যবেক্ষণ করে বিজ্ঞজনেরা শিক্ষাকে জাতির মেরুদণ্ড হিসেবে অভিহিত করেছেন। কারণ, মেরুদণ্ড ছাড়া যেমন কোন মানব সচল থাকে না, তেমনি শিক্ষা ছাড়া জাতির অস্তিত্ব বিপন্ন হয়। যে জাতি যত বেশি শিক্ষিত সে জাতি তত বেশি উন্নত।

মন্তব্য : একটি জাতির ভবিষ্যৎ কল্যাণ নির্ভর করে শিক্ষার ওপর। জাতিকে প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে তোলা আবশ্যক ।

আরও পড়ুন :- ভাবসম্প্রসারণ : চকচক করলেই সোনা হয় না - ৩টি 

শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড ভাবসম্প্রসারণ - ২

মূলভাৰ : শিক্ষা ছাড়া কোনো জাতি জ্ঞান-বিজ্ঞানের উন্নতির চরম শিখরে আরোহণ করতে পারে না। শিক্ষার প্রভাবেই মানুষ যাবতীয় কুসংস্কার, জড়তা-হীনতা থেকে মুক্ত হয়ে প্রতিষ্ঠা লাভ করে ।

সম্প্রসারিত ভাব : মেরুদন্ডহীন মানুষ জড় পদার্থের মতো স্থির, অচল । তাই একজন মানুষকে সচল ও দন্ডায়মান রাখতে যেমন মেরুদন্ড প্রয়োজন, তেমনি একটি জাতির মেরুদন্ড হল শিক্ষা। শিক্ষা ছাড়া কোনো জাতি বিশ্বের বুকে সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারে না। যে জাতি যতো বেশি শিক্ষিত সে জাতি ততো বেশি উন্নত । 

শিক্ষাহীন জাতি পদে পদে বাধাপ্রাপ্ত হয়, জাতি হিসেবে পঙ্গুত্বের অভিশাপ বহন করতে হয়। তাই শিক্ষাকে জাতির মেরুদন্ড বলা হয়েছে। শিক্ষার প্রভাবেই মানুষ যাবতীয় কুসংস্কার ও সংকীর্ণতার বেড়া জাল ছিন্ন করে জাতিকে নিয়ে যেতে পারে উন্নতির চরম শিখরে । শিক্ষার আলোকিত পথেই জাতির মুক্তির সোনালী বন্দরে পৌঁছে যায় ।

মন্তব্য : শিক্ষা একটি জাতির আত্মপরিচয়ের বাহন। জাতিকে বিশ্ব দরবারে উন্নত মর্যাদাশীল জাতিতে পরিণত করতে হলে অবশ্যই তাকে শিক্ষিত করে তুলতে হবে। এ জন্যই বলা হয়- "The pen mighter than the sword."

আরও পড়ুন :- ভাবসম্পসারণ - চরিত্র মানুষের অমূল্য সম্পদ  

শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড ভাবসম্প্রসারণ - ৩

মূলভাব : মানবজাতির উন্নতি, অগ্রগতি ও সমৃদ্ধির প্রকৃত মানদণ্ড হলো শিক্ষা। শিক্ষা না থাকলে সেই জাতির অগ্রগতির পথ বাধাপ্রাপ্ত হয়। শিক্ষার অভাবে জাতি অন্ধকারে নিমজ্জিত হয়।

সম্প্রসারিত ভাব : মেরুদণ্ড হলো প্রত্যেকটা প্রাণীর অতি প্রয়োজনীয় একটি অঙ্গ। মেরুদণ্ড ছাড়া একজন মানুষ ও প্রাণী যেমন চলাফেরা করতে পারে না, ঠিক তেমনি শিক্ষা ছাড়া কোনো জাতি চলতে পারে না। যেখানে শিক্ষা নেই সেখানেই কুসংস্কার, অনাচার ভিড় জমায়। শিক্ষাহীন জীবন সাধনার পথে অগ্রসর হতে পারে না এবং এতে সভ্যতার আলো এসে পৌঁছতে পারে না। তাই শিক্ষাই জাতির মেরুদণ্ড হিসেবে বিবেচ্য। 

একটি জাতিকে ধ্বংস করতে দুটি জিনিস যথেষ্ট- যুদ্ধ ডাকা এবং সে জাতির শিক্ষাব্যবস্থাকে ধ্বংস করা। ব্যক্তিজীবনের শিক্ষার প্রভাব জাতীয় জীবনে প্রতিফলিত হয়। যে জাতি যতবেশি শিক্ষিত সে জাতি ততবেশি উন্নত। বর্তমান বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর দিকে তাকালেই এই কথার সত্যতা উপলব্ধি করা যায়। শিক্ষার মাধ্যমে জ্ঞানের রাজ্যে বিচরণ করে জাতি হয়ে ওঠে সমৃদ্ধ। যে জাতি শিক্ষা লাভ করতে পারে না সেই জাতি মেরুদণ্ডহীন মানুষের মতই ধ্বংস হবে। 

মন্তব্য : জাতিকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করতে হলে অবশ্যই শিক্ষিত হতে হবে। সমাজের উন্নতি, সভ্যতার উন্নতি এবং জাতির উন্নতির জন্য শিক্ষার প্রয়োজনীয়তা অপরিহার্য ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

শিক্ষাগার ওয়েবসাইটের নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url